মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২২, ৪ মাঘ ১৪২৮, সকাল ১০:১৫
শিরোনাম :
মুলাদীতে শিক্ষার্থীদের অনুমতি ছাড়াই মাদরাসায় ভর্তির আবেদনের অভিযোগ উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে সরকার সরল উত্তরণ কৌশল প্রণয়ন করবে : প্রধানমন্ত্রী কনে দেখে ফেরার পথে প্রবাসী বরসহ নিহত-৩ এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ ৩০ ডিসেম্বর মুলাদীতে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সপ্তাহ এবং বিজ্ঞান মেলার উদ্বোধন মুলাদীতে ইয়াবাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক প্যাদারহাট ওয়াহেদিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি হলেন ওয়াহিবা আখতার শিফা প্রোটেক্টিভ লাইফ ও আইসিবি ক্যাপিটাল এর সাথে আইপিও সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষর পূর্বের স্থানে বিদ্যালয়ে নতুন ভবন নির্মাণের দাবিতে মানববন্ধন ‘এমভি অভিযান-১০’ লঞ্চে আগুনে প্রাণহানি ৪২, দগ্ধ ৭০: রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক

কনে দেখে ফেরার পথে প্রবাসী বরসহ নিহত-৩

গণবার্তা রিপোর্ট: বরিশালের মুলাদীতে কনে দেখে ফেরার পথে প্রবাসী বরসহ ৩জন নিহত হয়েছে। রোববার বেলা ১২টার দিকে উপজেলার মুলাদী সদর ইউনিয়নের কাজিরহাট ঈদগাঁ এলাকায় মুলাদী-মীরগঞ্জ সড়কে এই ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন কাজিরচর ইউনিয়নের বড়ইয়া গ্রামের মৃত খালেক হাওলাদারের ছেলে ইদ্রিস আলী হাওলাদার (৬০), কালাই নলীর ছেলে হারুন নলী (৪৫) এবং মোনাছেফ নলীর ছেলে ওমান প্রবাসী রাজিব নলী (২৩)। এদের মধ্যে রাজিব নলী মোটরসাইকেল চালাচ্ছিলেন বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা।

কাজিরচর ইউনিয়নের বড়ইয়া কাজিরচর এলাকার গ্রাম পুলিশ আব্দুল খালেক জানান, রাজিব নলী ওমানে থাকতেন। ১ সপ্তাহ আগে তিনি দেশে আসেন এবং বিয়ের জন্য বিভিন্ন জায়গায় কনে দেখছিলেন। রোববার সকালে কনে দেখে বেলা ১২টার দিকে ঘটক ইদ্রিস হাওলাদার ও চাচা হারুন নলীসহ মোটরসাইকেল যোগে বাড়ি ফিরছিলেন। মোটরসাইকেলটি কাজিরচরহাট ঈদগাঁ এলাকায় পৌছলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পাশ্ববর্তী গাছের সাথে ধাক্কা লাগে। এতে মোটরসাইকেলে থাকা তিনজনই ছিটকে রাস্তা ও পাশ্ববর্তী গর্তে পড়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান।

নিহত রাজিব নলীর বড়ভাই জামাল নলী জানান, রাজিব ওমান থেকে ২ মাসের ছুটিতে বাড়িতে এসেছে। বিয়ের পর আবার ওমান যাওয়ার কথা ছিলো তাঁর। রোববার সকালে ঘটক ইদ্রিস আলী হাওলাদার ও চাচা হারুন নলীকে নিয়ে কনে দেখতে গিয়েছিলো। ফেরার পথে দুর্ঘটনার শিকার হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ইসমাইল হোসেন জানান, মোটরসাইকেলটি গাছের সাথে সজোড়ে আঘাত লাগায় তিনজনই ছিটকে পড়েন। এতে তাদেরে মুখমণ্ডল বিকৃত হয়ে যায়। আঘাত এবং প্রচুর রক্তক্ষরণের ফলে দুর্ঘটনার ২/৩ মিনিটের মধ্যেই সবাই মারা যান

সংবাদ পেয়ে মুলাদী থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং নিহতদের লাশ থানায় নিয়ে আসেন। এব্যাপারে মুলাদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এস.এম মাকসুদুর রহমান জানান, নিহতদের পরিবারের কোনো অভিযোগ না থাকায় লাশ দাফনের জন্য স্বজনদের কাছে দেওয়া হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন...

Developed by: Engineer BD Network