বুধবার, ৮ ডিসেম্বর ২০২১, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, সকাল ১০:২৯

গণবার্তা রিপোর্ট: সোমবারের ভারী বর্ষণে ধানমন্ডি এলাকার মূল সড়কগুলোও কয়েক ঘণ্টা পানির নিচে ছিল। তবে বৃষ্টি থামার কিছুক্ষণ পর সড়ক থেকে পানি নেমে যায়। কিন্তু ধানমন্ডি ১৫ নম্বরের মূল সড়কের কিছু ভেতরে স্টাফ কোয়ার্টার এলাকা থেকে শুরু করে জিগাতলা নতুন রাস্তায় প্রায় এক কিলোমিটার সোমবার ভোর থেকেই জলজট।

মঙ্গলবার (২১ জুলাই) দুপুরে ওই রাস্তায় সরেজমিন এমন চিত্র দেখা যায়। এলাকাবাসী জানান, গত রোববার দিবাগত রাতে বৃষ্টি শুরু হয়। তবে সে রাতে রাস্তায় পানি জমাটা তারা তেমন টের পাননি। কিন্তু সোমবার ফজরের নামাজে যেতে গিয়ে দেখা যায় রাস্তায় হাঁটু পানি, কোথাওবা তার চেয়েও বেশি। মঙ্গলবার দুপুরেও এ রাস্তায় হাঁটু পানি জমে থাকতে দেখা গেছে।

এ বিষয়ে জিগাতলা নতুন রাস্তার বাসিন্দা জামিল আহমেদ জাগো নিউজকে বলেন, ‘আশপাশের এলাকা থেকে নতুন রাস্তা তুলনামূলক ঢালু। তাই গত ২০ বছর থেকেই পানি জমার বিষয়টি দেখে আসছি। তবে চার থেকে পাঁচ বছর আগে রাস্তাটা কিছুটা উঁচু করা হয়। এতে করে কিছুটা জলাবদ্ধতা কমেছে। তারপরও বৃষ্টি হলেই এ রাস্তায় পানি জমে থাকে। এতে করে তীব্র ভোগান্তি পোহাতে হয় বাসিন্দাদের। এমনকি যাদের সকালবেলা অফিস যেতে হয়, এ রাস্তাটুকু পার হয়ে তাদের কাপড় চেঞ্জ করতে হয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘বর্তমানে স্কুল বন্ধ, যখন স্কুল-কলেজ খোলা থাকে তখন শিক্ষার্থীরা চরম ভোগান্তিতে পড়ে। মসজিদে নামাজ পড়তে যাওয়া যায় না। এ রাস্তাতেই ধানমন্ডি আইডিয়াল স্কুলের একটি শাখা আছে। এ স্কুলের শিক্ষার্থীরা বর্ষা মৌসুমে চরম ভোগান্তিতে পড়ে। তারপরও পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থার কোনো উন্নয়ন করা হয়নি।’

স্টাফ কোয়ার্টার এলাকার বাসিন্দা ওবায়দুল আলম বলেন, ‘অল্প দূরেই মেইন রাস্তা। বর্ষা মৌসুমে ওই রাস্তায় তেমন কোনো সমস্যা হয় না। কিন্তু স্টাফ কোয়ার্টার এলাকার রাস্তা নিয়ে আমরা বিরক্ত। বৃষ্টি হলেই রাস্তায় জমে যায় হাঁটু পানি। ফলে বর্ষার অধিকাংশ সময় মসজিদে নামাজ পর্যন্ত পড়তে যাওয়া যায় না। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিকে বিষয়টি বারবার বলার পরও কোনো কাজ হয়নি। এর ফলে চরম দুর্ভোগ সঙ্গী করেই বাস করছে এ এলাকার মানুষ।’

এদিকে মৌসুমি বায়ু সক্রিয় থাকায় গতকাল থেকে ঢাকাসহ সারাদেশে ভারী বৃষ্টি হচ্ছে। মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, সিলেট, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টি হতে পারে।

সংবাদটি শেয়ার করুন...

Developed by: Engineer BD Network