ঢাকাবুধবার , ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
আজকের সর্বশেষ সবখবর

নবনির্বাচিত রাষ্ট্রপতি নিয়ে আগ্রহ নেই বিএনপির

দৈনিক গণবার্তা
ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০২৩ ২:২৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

গণবার্তা রিপোর্ট: নবনির্বাচিত রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিনকে নিয়ে আগ্রহ নেই বিএনপির। এনিয়ে এখনো কোনো কথা বলতে রাজি নয় দলটি। আজ বুধবার বিএনপির এক সংবাদ সম্মেলনে রাষ্ট্রপতি নিয়ে অভিমত জানতে চাইলে অপারগতার কথা জানান দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

সাংবাদিকদের উদ্দেশে খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘গত প্রেস ব্রিফিংয়েও আপনারা এই বিষয়ে প্রশ্ন করেছিলেন। আজ আমি একই জবাব দেব। এ বিষয়ে আমাদের কোনো মন্তব্য নেই। আমাদের কোনো আগ্রহও নেই। ব্যাখ্যাও দিতে চাই না।’

কোনো প্রতিদ্বন্দ্বিতা না থাকায় গত সোমবার মো. সাহাবুদ্দিন দেশের ২২তম রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হন। ১২ ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রপতি পদের জন্য ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ তাঁকে মনোনয়ন দেয়। মনোনয়ন দেওয়ার দিন প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে খন্দকার মোশাররফ আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘আমাদের কোনো আগ্রহ নাই।’

১৩ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠকের সিদ্ধান্ত জানাতে গুলশানে দলের চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলন ডাকা হয়। সেখানে অন্যদের মধ্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, সেলিমা রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকের সিদ্ধান্ত জানিয়ে খন্দকার মোশাররফ বলেন, ‘দেশের সমস্যা সমাধানে ব্যর্থ ও অক্ষম সরকারের পরিবর্তন চায় বলেই বিরোধী দলের সভা-সমাবেশ-মিছিলে জনগণ সক্রিয়ভাবে অংশ নিচ্ছে। মামলা, নির্যাতন অগ্রাহ্য করতে সাহসী হয়েছে এবং বিজয়ের লড়াইকে বেগবান করেছে। কিন্তু ক্ষমতাসীন দল বিরোধী দলের প্রতিটি কর্মসূচিতে ক্রমাগত দ্বন্দ্ব ও সংঘাতের উসকানি দিচ্ছে। বিরোধী দল সচেতনভাবে এসব প্ররোচনার ফাঁদে পা না দেওয়ায় সরকারি দলের মন্ত্রী ও নেতারা হতাশ হয়ে আবোল-তাবোল কথা বলে লোক হাসাচ্ছে।’

‘পথ হারিয়ে পদযাত্রা করছে বিএনপি’—আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এমন মন্তব্যের জবাবে মোশাররফ বলেন, ‘এ কথা বলার মধ্য দিয়ে প্রমাণিত হয়েছে যে আমরা পথ হারাইনি। রাস্তায় আমাদের সরব অবস্থান দেখে তারা (সরকার) ভেবে পাচ্ছে না কী বলবে। কিছু না কিছু বলতে গিয়ে আবোল-তাবোল বকছে। সরকার হতাশ হয়ে আবোল-তাবোল বকছে।’

ইউনিয়নের পদযাত্রায় হামলা-মামলা ও হয়রানির অভিযোগ এনে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘ইউনিয়নে পদযাত্রাকে বিভিন্ন জায়গায় ওরা বাধা দিয়েছে। তার অর্থ কী? আমাদের প্রত্যেকটি ইউনিয়নে নেতা-কর্মীরা এই কর্মসূচিতে রাস্তায় নেমেছে। আওয়ামী লীগ যে পাল্টা শান্তি সমাবেশ করার কথা বলল, কয়টা ইউনিয়নে তারা শান্তি সমাবেশ করেছে? তারা তো শান্তি সমাবেশ করতে পারেনি। এই পাল্টা কর্মসূচি দেওয়ার অর্থ হচ্ছে, তারা দুর্বল, তারা দৈন্যদশায় পড়েছে এবং আবোল-তাবোল কর্মসূচি দিচ্ছে।’

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।