শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ৩১ আশ্বিন ১৪২৮, সকাল ১১:৩৩
শিরোনাম :
বঙ্গবন্ধুর জন্ম হয়েছিলো বলেই আমরা বাংলাদেশ পেয়েছি – ড. হারুন অর রশিদ বিশ্বাস মুলাদীতে শারদীয় দুর্গোৎসবে আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় পুলিশের মতবিনিময় খুলনায় স্বদেশ ইসলামী লাইফের বিশেষ উন্নয়ন সভা ঢাকা এঞ্জেল লায়ন্স ক্লাবের উদ্যোগে বৃক্ষরোপন, খাদ্য ও মাস্ক বিতরন ৪ শতাংশ সুদে ঋণ দেবে লংকাবাংলা ফাইন্যান্স টাঙ্গাইল জেলা যুবলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত মার্কেন্টাইল ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স এর রাজশাহী বিভাগের উন্নয়ন সভা এনআরবি ইসলামিক লাইফের ব্যবসা উন্নয়ন সভা অনুষ্ঠিত মুজিববর্ষ বধির দাবা প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ এনআরবি গ্লোবাল লাইফ ইন্স্যুরেন্সের ৮ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

মাদারীপরে জোরালো হচ্ছে পিসিআর ল্যাব স্থাপনের দাবি

জাহিদ হাসান, জেলা প্রতিনিধি, মাদারীপুর: মাদারীপুরে দিন দিন পিসিআর ল্যাব স্থাপনের দাবি জোরালো হচ্ছে। চলতি বছরের ৮ মার্চ দেশের প্রথম ৩ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়। তাদের একজন মাদারীপুরের এবং করোনার কারণেনে দেশের প্রথম লকডাউন ঘোষণা করা হয় মাদারীপুরের শিবচরকে। তাই করোনা ঝুঁকি বিবেচনায় মাদারীপুরে করোনা টেস্টের জন্য পিসিআর ল্যাব স্থাপনের দাবি জানিয়েছে মাদারীপুরের বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ। পিসিআর ল্যাব স্থাপনের দাবি দিন দিন গণদাবিতে পরিণত হচ্ছে।
সাংবাদিক, সাংস্কৃতিক ও সামাজিক সংগঠন থেকে শুরু করে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ এখন পিসিআর ল্যাব স্থাপনের দাবিতে আন্দোলনের দিকে ঝুঁকে পড়ছে। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ঝড় বইছে।

মাদারীপুর উন্নয়ন সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি মাসুদ পারভেজ বলেন, এখন সারাদেশে করোনা ভাইরাস সংক্রমিত হয়েছে। আমাদের মাদারীপুরে করোনার বিস্তার ব্যপক হারে ছড়িয়েছে। মাদারীপুর জেলাতে করোনা শনাক্তের জন্য পিসিআর ল্যাব না থাকায় নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকাতে পাঠাতে হয়। এই রিপোর্ট আসতে এক সপ্তাহ সময় লেগে যায়। এর মধ্যে কোন ব্যক্তি করোনা সংক্রমিত হলো কিনা জানা যাচ্ছে না।

এর মধ্যে কোন ব্যক্তি করোনা সংক্রমিত হলো কিনা জানা যাচ্ছে না। ফলে আক্রান্ত ব্যক্তির আইসোলেশন বা চিকিৎসার সুযোগও তৈরি হচ্ছেনা। এতে আক্রান্ত ব্যক্তি যেমন ঝুঁকিতে পড়েন। কখনো বা মারা যায়। তেমনি অন্যদের মাঝে রোগটির সংক্রমন বেড়ে যায়। তাই অনতি বিলম্বে মাদারীপুরে পিসিআর ল্যাব স্থাপনের দাবি করছি।
মাদারীপুর উন্নয়ন সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক বেলাল রিজভী জানান, মাদারীপুর দিন দিন করোনা রোগীর সংখ্যা বেড়ে চলেছে। রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত মাদারীপুর জেলা। মাদারীপুরে একাধিক করোনা রোগী উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়ার ৩/৪দিন পরে জানা গেছে তারা করোনা পজেটিভ ছিলেন। এতে করে সাধারণ মানুষের মাঝে সংক্রমন বেড়েছে। এছাড়াও জেলার ৪টি উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে সোয়াব দেবার জন্য করোনা রোগীদের ভিড় দিন দিন বাড়ছে। সংগ্রহ করা সোয়াব ঢাকায় পাঠিয়ে ফলাফল জানতে বেশ সময় লাগছে। অনেক সময় পেন্ডিং অবস্থায় থাকছে রিপোর্ট, তাই রোগীদের চিকিৎসা, আইসোলেশন ও কোয়ারেন্টে সময় মত রাখা যাচ্ছে না। দেখা যাচ্ছে কোন রোগী যদি করোনা আক্রান্ত হয়ে থাকেন রিপোর্ট আসার আগেই তিনি অন্যান্য লোকজনের সাথে মিশে করেনার সংক্রমন ঘটাচ্ছেন। তাই করোনা শনাক্তকরন পিসিআর ল্যাব স্থাপন খুব জরুরী। একই সাথে আইসিইউ স্থানের দাবিও জানান তিনি।

সংবাদটি শেয়ার করুন...

Developed by: Engineer BD Network