শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ৩১ আশ্বিন ১৪২৮, সকাল ১১:০৭
শিরোনাম :
বঙ্গবন্ধুর জন্ম হয়েছিলো বলেই আমরা বাংলাদেশ পেয়েছি – ড. হারুন অর রশিদ বিশ্বাস মুলাদীতে শারদীয় দুর্গোৎসবে আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় পুলিশের মতবিনিময় খুলনায় স্বদেশ ইসলামী লাইফের বিশেষ উন্নয়ন সভা ঢাকা এঞ্জেল লায়ন্স ক্লাবের উদ্যোগে বৃক্ষরোপন, খাদ্য ও মাস্ক বিতরন ৪ শতাংশ সুদে ঋণ দেবে লংকাবাংলা ফাইন্যান্স টাঙ্গাইল জেলা যুবলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত মার্কেন্টাইল ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স এর রাজশাহী বিভাগের উন্নয়ন সভা এনআরবি ইসলামিক লাইফের ব্যবসা উন্নয়ন সভা অনুষ্ঠিত মুজিববর্ষ বধির দাবা প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ এনআরবি গ্লোবাল লাইফ ইন্স্যুরেন্সের ৮ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

নীলফামারীতে ২৩ চীনা নাগরিকের করোনা শনাক্ত

গণবার্তা রিপোর্ট: নীলফামারীতে নতুন করে ২৩ চীনা নাগরিকসহ এক দিনে ৪৫ জনের দেহে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় শনাক্ত করোনা রোগির সংখ্যা ৫৮১ জনে দাঁড়িয়েছে।

তবে জেলায় শনাক্ত হওয়াদের মধ্যে সুস্থতার হার ৭৫ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৬৭ শতাংশ বলে জানিয়েছেন সিভিল সার্জন ডা. রনজিৎ কুমার বর্মন। জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ জানায়, শুক্রবার রাতে রাজধানী ঢাকার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ল্যাবরেটরী মেডিসিন এ- রেফারেল সেনটার (এনআইএলএমআরসি) ল্যাব থেকে ৪৫ জনের কোভিড-১৯ শনাক্ত হওয়ার প্রতিবেদন আসে।

ওই প্রতিবেদনে সদর উপজেলায় ৩৫ জন, ডিমলা উপজেলায় ৬ জন, ডিমলা ও সৈয়দপুর উপজেলায় দুই জন করে শনাক্ত হয়েছেন।

সদর উপজেলার ৩৫ জনের মধ্যে উত্তরা ইউপিজেডেই রয়েছেন ২৬ জন। তাদের মধ্যে ২৩ জনই চীনা নাগরিক। বাকী ৩ তিনজন দেশীয় শ্রমিক-কর্মকর্তা। এছাড়াও নীলফামারী পৌরশহরের একই পরিবারের তিনজনসহ ৯ জন শনাক্ত  হয়েছেন।

জেলায় মোট ৫৮১ শনাক্ত কোভিড-১৯ রোগির মধ্যে জেলা সদরে ২৬৮ জন, ডোমার উপজেলায় ৫১ জন, ডিমলা উপজেলায় ৬০ জন, জলঢাকা উপজেলায় ৮৯ জন, কিশোরগঞ্জ উপজেলায় ৩৮ জন এবং সৈয়দপুর উপজেলায় ৭৫ জন রয়েছেন। ছয় উপজেলার মধ্যে জেলা সদরেই শনাক্ত রোগির সংখ্যা সবচেয়ে বেশি।

শনিবার বিকালে সিভিল সার্জন রনজিৎ কুমার বর্মন এসব তথ্যের সত্যতা নিশ্চিৎ করে বলেন, ‘নতুন ৪৫ জনসহ জেলায় এখন পর্যন্ত কোভিড-১৯ শনাক্ত রোগির সংখ্যা ৫৮১জন। এদের মধ্যে এখন পর্যন্ত জেলায় ৯ জন মৃত্যু বরণ করেছেন। আর সুস্থ্য হয়েছেন ৪৩২জন। বাকীরা চিকিৎসাধীন রয়েছেন।’

তিনি আরো বলেন, ‘জেলায় শনাক্ত হওয়া মোট রোগির মধ্যে সুস্থ্য হয়ে উঠার হার ৭৫ ভাগ এবং মৃত্যর হার ১ দশমিক ৬৭ ভাগ।

শুক্রবার পর্যন্ত জেলায় মোট ৪৬২৮টি নমুনা সংগ্রহ করা হয় এর মধ্যে ৪৬১১টি নমুনার ফলাফলে পাওয়া গেছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন...

Developed by: Engineer BD Network