মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২২, ৪ মাঘ ১৪২৮, সকাল ১০:০৭
শিরোনাম :
মুলাদীতে শিক্ষার্থীদের অনুমতি ছাড়াই মাদরাসায় ভর্তির আবেদনের অভিযোগ উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে সরকার সরল উত্তরণ কৌশল প্রণয়ন করবে : প্রধানমন্ত্রী কনে দেখে ফেরার পথে প্রবাসী বরসহ নিহত-৩ এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ ৩০ ডিসেম্বর মুলাদীতে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সপ্তাহ এবং বিজ্ঞান মেলার উদ্বোধন মুলাদীতে ইয়াবাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক প্যাদারহাট ওয়াহেদিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি হলেন ওয়াহিবা আখতার শিফা প্রোটেক্টিভ লাইফ ও আইসিবি ক্যাপিটাল এর সাথে আইপিও সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষর পূর্বের স্থানে বিদ্যালয়ে নতুন ভবন নির্মাণের দাবিতে মানববন্ধন ‘এমভি অভিযান-১০’ লঞ্চে আগুনে প্রাণহানি ৪২, দগ্ধ ৭০: রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক

মুলাদীতে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের তহবিলের চেক হস্তান্তর

মুলাদী (বরিশাল) প্রতিনিধি ॥
মুলাদীতে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের তহবিলের চেক হস্তান্তর করা হয়েছে। কেন্দ্রিয় আওয়ামীলীগ নেতা সমাজসেবক কাজী মিজানুর রহমান মিন্টু অক্লান্ত পরিশ্রম করে মুলাদী উপজেলার মসজিদ, মন্দির, মাদরাসা ও হতদরিদ্র পরিবারের জন্য ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে প্রায় ২০ লাখ টাকা বরাদ্দ করেছেন। সাম্প্রতি উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী মাইনুল আহসান সবুজ ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে প্রাপ্ত চেক উপজেলা নির্বাহী অফিসার শুভ্রা দাসের কাছে হস্তান্তর করেন।
আওয়ামীলীগের কেন্দ্রিয় নেতা, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, বরিশালের কৃতি সন্তান কাজী মিজানুর রহমান মিন্টু জানান মুলাদী-বাবুগঞ্জবাসীর কল্যানে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন ও মিশন বাস্তবায়ন করতে জনগণের পাশে থেকে কাজ করছেন। তিনি ইতোমধ্যে মুলাদী উপজেলার ৩১টি এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বহুতল ভবন নির্মাণের ব্যবস্থা করেছেন। ২০১৯ সালে ২২টি মসজিদের প্রতিটিতে ৫০হাজার টাকা বরাদ্দ করেছেন। ওই বছরই তিনি উপজেলার ৫জন ইমামকে সরকারিভাবে হজ্বব্রত পালনের ব্যবস্থা করেছেন। এছাড়াও কাজী মিজানুর রহমান মিন্টু মুলাদী-বাবুগঞ্জবাসীর বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজে সার্বিক সহযোগিতা করে যাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন উপজেলার আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীরা।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার শুভ্রা দাস জানান ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে উপজেলার চরকালেখান গলইভাঙ্গা জামে মসজিদ, বড়পাতারচর কাজী বাড়ি জামে মসজিদসহ ২১টি মসজিদের প্রতিটিতে ৫০ হাজার টাকা, মুলাদী এহসানিয়া সিটি জামে মসজিদ, মুলাদী পশ্চিম বাজার জামে মসজিদসহ ৯টি মসজিদের প্রতিটিতে ৪০ হাজার টাকা, দড়িচর লক্ষ্মীপুর রাধা গোবিন্দ জিয়র আশ্রম মন্দিরে ৩ লক্ষ টাকা, মজুমদার বাড়ি দুর্গা ও কালী মন্দির, বেইলি ব্রিজ শ্রী শ্রী দুর্গা মন্দিরসহ ৮টি মন্দিরের প্রতিটিতে ১৫ হাজার টাকা এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী মোকাম্মেল হোসেন, বিউটি বেগম, কাজী এনামুল হক, সবুজ সরদারসহ ১২টি দরিদ্র পরিবারের প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা করে বরাদ্দ দেওয়া হয়। ধর্ম মন্ত্রণালয় থেকে প্রাপ্ত চেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী মাইনুল আহসান সবুজ রবিবার উপজেলা নির্বাহী অফিসারের হাতে তুলে দেন। এসময় উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব তারিকুল হাসান খান মিঠু উপস্থিত ছিলেন।
ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে টাকা পেয়ে উপজেলার মসজিদ-মন্দির কমিটির সভাপতি-সম্পাদকবৃন্দ এবং হতদরিদ্র পরিবারগুলো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও কেন্দ্রিয় আওয়ামীলীগ নেতা কাজী মিজানুর রহমান মিন্টুর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন...

Developed by: Engineer BD Network